স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে যেসকল শুভেচ্ছা পেয়েছি তা তৃণমুলে প্রচার করতে হবে- প্রধানমন্ত্রী

শেয়ার করতে নিচের বাটনে ক্লিক করুন

আভা ডেস্কঃ উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ে তোলার প্রত‌্যয় ব‌্যক্ত করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘জাতির পিতার স্বপ্নের ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়বো, এটাই প্রতিজ্ঞা।’

রোববার (২৮ মার্চ) বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে সভায় অংশ নেন তিনি।

পঁচাত্তর পরবর্তী সময়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাম মুছে ফেলার কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, তার ৭ মার্চেন ভাষণ নিষিদ্ধ করা হয়েছিলো। বাংলাদেশকে ভিন্ন খাতে নেওয়া হয়েছিল। আমরা ক্ষমতায় আসার পর নানা কর্মসূচি নিয়েছিলাম। তারপরও চক্রান্ত থামেনি। ২০০১ এ আমাদের ক্ষমতায় আসতে দেয়নি। এই সময়ে পাঁচবার দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়নসহ নানা খাতে পিছিয়েছে বাংলাদেশ।

গত এক যুগ আওয়ামী লীগ সরকার টানা ক্ষমতায় থাকার কারণে ব‌্যাপক উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে তিনি বলেন, ১২ বছরে বাংলাদেশের আমূল পরিবর্তন হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়ে দেশ পরিচালনা করেছি। বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন, দাবায়ে রাখতে পারবা না। আসলেও দাবায়ে রাখা যায়নি, যাচ্ছে না। তার আদর্শে আমরা এগিয়ে যাচ্ছি।

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে বিশ্বের রাষ্ট্রপ্রধানদের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন বাংলাদেশের জনগণের জন‌্য সম্মানের এবং সার্থকতা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ও ২৭টি প্রতিষ্ঠান থেকে শুভেচ্ছা বার্তা আমরা পেয়েছি। সময়ের অভাবে সব বার্তা শোনাতে পারিনি। সমস্ত বার্তা রক্ষিত আছে। তৃণমূল পর্যন্ত প্রচার করতে হবে।

বিশ্বের রাষ্ট্রনায়কদের এসব শুভেচ্ছা বার্তা যেন জনসাধারণ জানতে পারে সেজন‌্য সরকারের পাশাপাশি আওয়ামী লীগও বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনকে এগুলো প্রচারে কাজ করার নির্দেশনা দেন তিনি।

খাদ‌্য উৎপাদন বাড়াতে জমি অনাবাদি না রেখে ফসল ফলানোর পরামর্শ দিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, খাদ্য উৎপাদন করে নিজেদের প্রস্তুতি রাখতে হবে, যাতে অন্তত খাদ্য সংকট না হয়। করোনা পরিস্থিতি কোন দিকে যায় বলা যায় না। আমরা নিজের খাদ্য নিজেই জোগান নিশ্চিত করবো, প্রয়োজনে অন্যকেও দিতে পারবো।

এ সময় সারা দেশ আরও সবুজায়ন করতে বৃক্ষরোপণ  কর্মসূচি অব‌্যাহত রাখার কথাও বলেন তিনি। একটি মানুষও ভুমিহীন এবং গৃহহীন থাকবে না-এই লক্ষ‌্য তার সরকার কাজ করছে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মাস্ক ছাড়া বাইরে নয়

করোনা পরিস্থিতি খারাপের দিকে যাওয়ায় বিষয়টি স্মরণ করিয়ে দিয়ে দেশের জনগণকে স্বাস্থ‌্যবিধি কঠোরভাবে মেনে চলার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব বাড়ছে। সব অনুষ্ঠান সতর্কতার সঙ্গে করতে হবে। তবে কেউ মাস্ক ছাড়া বাইরে বের হবেন না। শারীরিক দূরত্ব মেনে চলতে হবে। সভা-সেমিনার-কর্মশালা স্বাস্থ্যসুরক্ষা মেনে করতে হবে। যতদূর সম্ভব খোলা জায়গায় কর্মসূচি করতে হবে।

করোনার প্রথম ধাক্কায় যেভাবে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন, তেমনিভাবে আগামীতেও মানুষের পাশে দাঁড়ানোর নির্দেশ দেন শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, যে দল বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে দেশ স্বাধীন করেছে, তাদের ওপর অনেক দায়িত্ব। মানুষের জন্য খাদ্য বিতরণ, মাস্কসহ স্বাস্থ্যসুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ ও নানা সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে হবে।

সভায় সূচনা বক্তব্য দেন সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। অন‌্যদের মধ‌্যে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আবদুর রাজ্জাক, আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন প্রমুখ।

Next Post

বিব্রতকর, হতশ্রী পারফরম্যান্সে বাংলাদেশের ৬৬ রানে হার

রবি মার্চ ২৮ , ২০২১
শেয়ার করতে নিচের বাটনে ক্লিক করুনআভা ডেস্কঃ সংস্করণ পরিবর্তন হয়েছে, তবে বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের মনোভাব পরিবর্তন হয়নি। ওয়ানডে সিরিজ শেষে মাহমুদউল্লাহরা খেলতে নেমেছিলেন টি-টোয়েন্টিতে; কিন্তু পারফরম্যান্স সেই ওয়ানডের মতোই। ব্যাটিং-বোলিংয়েও দেখা গেছে কদর্য অবস্থা। বিব্রতকর, হতশ্রী পারফরম্যান্সে তিন টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশ হারে ৬৬ রানে। রোববার ওয়েলিংটনের সেডন পার্কে শুরুটা কী […]

Chief Editor

Johny Watshon

Lorem ipsum dolor sit amet, consectetur adipiscing elit, sed do eiusmod tempor incididunt ut labore et dolore magna aliqua. Ut enim ad minim veniam, quis nostrud exercitation ullamco laboris nisi ut aliquip ex ea commodo consequat. Duis aute irure dolor in reprehenderit in voluptate velit esse cillum dolore eu fugiat nulla pariatur

Quick Links