সরকারের ওপর ক্ষোভ কমানোর উপায় জানালেন গয়েশ্বর

শেয়ার করতে নিচের বাটনে ক্লিক করুন

আভা ডেস্কঃ পদত্যাগ করে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিলে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকারের ওপর জনগণের ক্ষোভ কমবে বলে মনে করেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।

ক্ষমতাসীনদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিন। এতে দেশের মানুষের আপনাদের ওপর যত ক্ষোভ আছে, আপনাদের যতটা ঘৃণা করে তা কমে যেতে পারে।’

শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে জিয়া নাগরিক ফোরামের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে গয়েশ্বর বলেন, ‘অনেকদিন ধরে উপলব্ধি করেছি, ঘরে বসে সমস্যার সমাধান হবে না। তবে পরিস্থিতিভেদে রাজপথের পাশাপাশি ঘরকে অবহেলা করারও সুযোগ কম। ’

করোনাভাইরাসকে সরকার রাজনৈতিক ঢাল হিসেবে ব্যবহার করছে বলে মন্তব্য করেন বিএনপির এই নেতা।

তিনি বলেন, ‘এর অর্থ এই নয় যে সরকারের বিধিনিষেধ দীর্ঘকাল মানতে আমরা বাধ্য নয়। সময়ই আমাদের বলে দেবে কখন কী করতে হবে।

‘খালেদা জিয়ার মুক্তি বা বিদেশে উন্নত চিকিৎসার দাবিতে সরকারের ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে কর্মসূচি হয়েছে। বিএনপির শক্তি সরকার পরিমাপ করতে পেরেছে। এ কারণেই সরকার করোনা নামক বিধিনিষেধের অস্ত্রটি ব্যবহার করেছে।আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের জরিপেও ৮৮ শতাংশ মানুষ বলছে, রাজনৈতিক কারণে বাংলাদেশে বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে।’

যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার দিকে ইঙ্গিত করে গয়েশ্বর বলেন, ‘বিদেশিরা কাকে অপছন্দ করছে বা করছে না তা বোঝা যাচ্ছে না। কিন্তু যাদের নাম তালিকায় ছিল না তারাও ঝাঁকে ঝাঁকে ফেরত আসছেন। আবার বিদেশিরা যাদের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে তাদের সরকার পুরস্কারও দিচ্ছে। এসব করে সরকার বিশ্ব বিবেককে চ্যালেঞ্জ করছে।’

তিনি বলেন, ‘সুনির্দিষ্টভাবে যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আছে, সরকার যদি তাদের বিচারের আওতায় আনত তাহলে বিশ্ববাসীর রুষ্টতা কিছুটা কমত। কিন্তু তারা চ্যালেঞ্জ করেছে। আসলে এদের বুদ্ধি কম বলে মনে হচ্ছে।’

সরকারের মন্ত্রী-এমপি নানা দুর্নীতি করছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। বলেন, ‘হয়ত বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের কারাগারে যাওয়ার পর্বটা শেষ হবে। তবে, কারাগার ফাঁকা থাকবে না। দুর্নীতি, সন্ত্রাসসহ নানা অপকর্মের সঙ্গে জড়িত ক্ষমতাসীনদের কারাগারে যেতে হবে। দ্বিগুণ বড় করতে হবে কারাগার।’

গয়েশ্বর বলেন, ‘এই সরকারের জাতীয় সংসদে যারা আছেন, তাদের দেশের মানুষ ভোট চোর বলে। চোর কখনও সাহসী হয় না। চোরদের যারা সাহসী ভাবে তারা কাপুরুষ। আশা করি আমরা কাপুরুষের ভূমিকায় অবতীর্ণ হবো না। জিয়াউর রহমান সম্মুখভাগে যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছেন, তেমনি সব বাধা মোকাবিলা করে জনগণের অধিকার আমরা প্রতিষ্ঠা করব।’

সংগঠনের সভাপতি মিয়া মোহা. আনোয়ারের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এ কে এম জামানের পরিচালনায় আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপি নেতা হাবিবুর রহমান হাবিব, আব্দুস সালাম আজাদ প্রমুখ।

Next Post

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে চলমান পরীক্ষা চালু রাখার দাবিতে রাজশাহীতে বিক্ষোভ

শনি জানু. ২২ , ২০২২
শেয়ার করতে নিচের বাটনে ক্লিক করুনআভা ডেস্কঃ করোনা সংক্রমণের ঊর্দ্ধগতিতে দু’সপ্তাহের জন্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করেছে সরকার। তবে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে চলমান পরীক্ষাগুলো নেওয়ার দাবিতে রাজশাহীতে বিক্ষোভ-সমাবেশ হয়েছে। শনিবার সকালে রাজশাহী কলেজসহ বিভিন্ন কলেজের শিক্ষার্থীরা শহরের সাহেববাজার জিরোপয়েন্টে এ কর্মসূচি পালন করেন। কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে রাজশাহী কলেজের শিক্ষার্থী সুমাইয়া খাতুন […]

Chief Editor

Johny Watshon

Lorem ipsum dolor sit amet, consectetur adipiscing elit, sed do eiusmod tempor incididunt ut labore et dolore magna aliqua. Ut enim ad minim veniam, quis nostrud exercitation ullamco laboris nisi ut aliquip ex ea commodo consequat. Duis aute irure dolor in reprehenderit in voluptate velit esse cillum dolore eu fugiat nulla pariatur

Quick Links