রাজশাহীতে কোভিড-১৯ রিসপন্স এন্ড রিকভারি প্রজেক্ট বাস্তবায়ন ভিত্তিক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

শেয়ার করতে নিচের বাটনে ক্লিক করুন

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগের আয়োজনে লোকাল গর্ভনমেন্ট কোভিড-১৯ রিসপন্স এন্ড রিকভারি প্রজেক্ট  (LGCRRP) বাস্তবায়ন ভিত্তিক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার নগর ভবনের সিটি হলরুমে আয়োজিত  দিনব্যাপী কর্মশালায় বিশ্ব ব্যাংকের প্রতিনিধিবৃন্দ, রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন ও রাজশাহী বিভাগের ৬২টি পৌরসভার মেয়র, পৌর নির্বাহী কমকর্তা, পৌরসভার প্রকৌশলীবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।

রাসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড.এবিএম শরীফ উদ্দিনের সভাপতিত্বে আয়োজিত কর্মশালায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন  LGCRRP প্রকল্পের প্রজেক্ট ডাইরেক্টর নাজমুস সাদাত মোঃ জিল্লুর রহমান। কর্মশালায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন প্রকল্পের সিনিয়র আরবান ডেভেলপমেন্ট স্পেশালিস্ট ওয়ার্ল্ড ব্যাংকের টাস্ক টিম লিডার শেন হুয়াওয়াং, এলজিইডির রোড এন্ড ব্রিজ মেনটেইনেন্স ইউনিটের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী আলী আখতার, প্রকল্পের সার্বিক কার্যক্রম বিষয়ে উপস্থাপন করেন ওয়াল্ড ব্যাংকের কনসালটেন্ট ড.  হুরায়রা জাবিন।

উপস্থিত ছিলেন বিশ্ব ব্যাংকের সিনিয়র সোস্যাল ডেভেলপমেন্ট স্পেশালিস্ট মোঃ আকতার জামান, সিনিয়র এনভায়রনমেন্ট স্পেশালিস্ট ইকবাল আহমেদ, কনসালটেন্ট আকরাম আজিজ, প্রোগ্রাম এসোসিয়েট জিনিয়া সুলতানা, রাসিকের সচিব মশিউর রহমান, প্রধান প্রকৌশলী নুর ইসলাম তুষার। মুক্ত আলোচনায় বিভিন্ন পৌরসভার মেয়র, পৌর নির্বাহী কর্মকর্তা ও প্রকৌশলীগণ বিভিন্ন প্রস্তাবনা তুলে ধরেন।

কর্মশালায় রাসিকের প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শেখ মোঃ মামুন ডলার, নির্বাহী প্রকৌশলী যান্ত্রিক আহমদ আল মঈন পরাগ, নির্বাহী প্রকৌশলী (বিদ্যুৎ) এ.বি.এম আসাদুজ্জামান সুইট, নির্বাহী প্রকৌশলী (পরিকল্পনা) সুব্রত কুমার সরকার, নির্বাহী প্রকৌশলী (উন্নয়ন) মাহমুদুর রহমান, নির্বাহী প্রকৌশলী (উন্নয়ন) নিলুফার ইয়াসমিন সহ প্রকৌশল বিভাগের অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, নগর স্থানীয় সরকারের কোভিড-১৯ মহামারীর প্রভাব ও ভবিষ্যৎ দুর্যোগ মোকাবেলার সক্ষমতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে খএঈজজচ প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হচ্ছে। প্রকল্পে বিশ্ব ব্যাংক ২ হাজার ৫৪৪ কোটি এবং বাংলাদেশ সরকারের ১১ কোটি টাকা সর্বমোট ২ হাজার ৫৫৫ কোটি টাকা ব্যয় ধরা হয়েছে। প্রকল্পটি সমাপ্ত হবে ডিসেম্বর ২০২৫ সাল। ৩ বছর মেয়াদি এ প্রকল্পের আওতায় দেশের ১০টি সিটি কর্পোরেশন ও ৩২৯টি পৌরসভায় এ প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হবে। এ প্রকল্পের আওতায় পরিবেশ এবং সামাজিক সুরক্ষা নিশ্চিতকরণে কাজ করবে। নগর স্থানীয় সরকারের কোভিড মহামারী মোকাবেলায় নগর অবকাঠামোসমূহ পূণর্বাসন ও রক্ষণাবেক্ষণের মাধ্যমে নগরের জনসাধারণের জীবনমান উন্নয়ন, নগর দারিদ্র হ্রাস, দক্ষতা বৃদ্ধি, ডিজিটাল টেকনোলজি, প্রকল্প পরিচালনা ও কারিগরি সহযোগিতা প্রদান।

Next Post

শার্শায় বিনামূল্যে চক্ষু চিকিৎসা সেবা প্রদান

রবি ডিসে. ৪ , ২০২২
শেয়ার করতে নিচের বাটনে ক্লিক করুনমোঃ সাগর হোসেন,বেনাপোল প্রতিনিধি: যশোরের শার্শায় নিজস্ব অর্থায়নে ফ্রি চক্ষু চিকিৎসা সেবা ও ঔষধ বিতরণ করেছেন বিশিষ্ট চক্ষু বিশেষজ্ঞ ও সার্জন ডা: মেজর আরিফুল ইসলাম। রবিবার (৪ ডিসেম্বর) সকালে  উপজেলার উলাশী ইউনিয়নরে লাউতাড়া গ্রামে এই চিকিৎসা প্রদান করা হয়। এসময় উলাশী ইউনিয়নের প্রায় ৪শত জন […]

Chief Editor

Johny Watshon

Lorem ipsum dolor sit amet, consectetur adipiscing elit, sed do eiusmod tempor incididunt ut labore et dolore magna aliqua. Ut enim ad minim veniam, quis nostrud exercitation ullamco laboris nisi ut aliquip ex ea commodo consequat. Duis aute irure dolor in reprehenderit in voluptate velit esse cillum dolore eu fugiat nulla pariatur

Quick Links