ডিআইজি পদে পদোন্নতি পাচ্ছেন ৩৪ কর্মকর্তা

শেয়ার করতে নিচের বাটনে ক্লিক করুন

আভা ডেস্কঃ পুলিশের উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি), তৃতীয় গ্রেডে ৩৪ জনকে পদোন্নতি দিতে যাচ্ছে সরকার। ডিআইজি হিসেবে একসঙ্গে এত বেশি সংখ্যক পদোন্নতি বাংলাদেশ পুলিশের ইতিহাসে এই প্রথম।

গত মঙ্গলবার এ নিয়ে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সুপিরিয়র সিলেকশন বোর্ডের (এসএসবি) বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে ওই ৩৪ জনকে পদোন্নতির সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। আজ বৃহস্পতিবার বা আগামী রোববার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এই পদোন্নতির প্রজ্ঞাপন জারি করবে। পুলিশ সদরদপ্তরের একাধিক পদস্থ কর্মকর্তা  বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জানতে চাইলে পুলিশ সদর দপ্তরে ডিআইজি (মিডিয়া) হয়দার আলী খান বলেন, ডিআইজি পদে ১৮টি নতুন পদ সৃষ্টি হয়েছে। আগেরও বেশ কয়েকটি পদ খালি ছিল। এ কারণে একসঙ্গে এতগুলো পদে পদোন্নতি হতে যাচ্ছে। পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, তবে শুধু ডিআইজি না, অতিরিক্ত ডিআইজি পদেও অন্তত অর্ধশতাধিক পদোন্নতির প্রক্রিয়া চলছে।

পুলিশের সদর দপ্তর সূত্রে জানা যায়, এবারের পদোন্নতির জন্য ১৮ ও ২০তম ব্যাচের কর্মকর্তাদের বেশি প্রাধান্য দেয়া হয়েছে। তবে তাছাড়াও ১২তম, ১৫তম ও ১৭তম ব্যাচে থেকে পুলিশ কর্মকর্তাদের বিবেচনা করা হচ্ছে।

জানা যায়, ২০১৬ থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত প্রতি বছর ডিআইজি পদে পদোন্নতি হয়। এরপর গত প্রায় দেড় বছর এই পদে (ডিআইজি) কোনো পদোন্নতি হয়নি। সর্বশেষ ২০২০ সালে ডিআইজি পদে ১১ জনকে পদোন্নতি দেয়া হয়েছিল। এর আগে ২০১৯ সালের অক্টোবরে আটজন, ২০১৮ সালের নভেম্বরে ১৭ জন, ২০১৭ সালের অক্টোবরে ১৫ জন এবং ২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারিতে ১৮ জনকে ডিআইজি পদে পদোন্নতি দেয় সরকার।

সূত্রমতে, ডিআইজি পদে পদোন্নতির জন্য পুলিশ সদর দপ্তর থেকে প্রায় ১৫০ জনের একটি প্রাথমিক তালিকা পাঠানো হয়েছিল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে। সেখান থেকে নানা বিষয় বিবেচনা করে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের পর্যালোচনার পর একটি সংক্ষিপ্ত তালিকা করা হয়। ওই তালিকা পাঠানো হয় জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে। গত মঙ্গলবার এসএসবি বৈঠকে তালিকা চূড়ান্ত হয়েছে।

যেভাবে নতুন পদের সৃষ্টি

পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের সাংগঠনিক কাঠামোর অভ্যন্তরীণ সংস্কারের মাধ্যমে ১৭৮টি পদের বিপরীতে পাঁচটি শর্তসাপেক্ষে বেতন গ্রেড নির্ধারণ করা হয়। গত বছরের ২৯ সেপ্টেম্বর অর্থ মন্ত্রণালয় এই সম্মতি দেয়। পরবর্তীতে ওই বছরের ১ নভেম্বর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক প্রজ্ঞাপনে পদগুলো মঞ্জুর করে। এর আগে মাঠপর্যায়ে আইনশৃঙ্খলা ব্যবস্থার উন্নয়ন ও নেতৃত্ব সুদৃঢ় করতে পুলিশের কাঠামোতে সংস্কারের উদ্যোগ নেয়া হয়। এ সংক্রান্ত আবেদন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠায় পুলিশ।

সেখানে অভ্যন্তরীণ সংস্কারের মাধ্যমে পুলিশের বিদ্যমান জনবল কাঠামোতে পরিবর্তন এনে নিম্নপর্যায়ের ক্যাডার পদের সংখ্যা কমিয়ে তার পরিবর্তে বাড়তি উচ্চপদ সৃষ্টির প্রস্তাব করা হয়। সেখানে পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের সাংগঠনিক কাঠামোর অভ্যন্তরীণ সংস্কারের মাধ্যমে ২০টি এসপি ও ১৫৮টি এএসপি এবং ৪৮টি অ্যাডিশনাল এসপিসহ সর্বমোট ১৭৮টি পদ বিলুপ্ত করে চারটি অ্যাডিশনাল আইজি, ১৮টি ডিআইজি, ৮৮টি অ্যাডিশনাল ডিআইজি, ২০টি এসপি এবং ৪৮টি অ্যাডিশনাল এসপিসহ মোট ১৭৮টি ক্যাডার পদের প্রস্তাবনা করা হয়।

ডিআইজি হতে যেসব শর্ত

পুলিশের ১৭৮টি নতুন পদের গ্রেড ও বেতন নির্ধারণ করে অর্থ মন্ত্রণালয়ের সম্মতির পর সেসময় গ্রেডসহ বেশ কিছু নিয়ম বেঁধে দেয়া হয়। এতে ডিআইজির ১৮টি পদ তৃতীয় গ্রেডে। নিয়োগ যোগ্যতায় বলা হয়, অতিরিক্ত ডিআইজি পদে কমপক্ষে তিন বছরের এবং নবম গ্রেড বা তার ওপরের গ্রেডে ১৪ বছরের চাকরির অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। এই পদে বেতন সর্বনিম্ন ৫৬ হাজার ৫০০ টাকা থেকে ৭৪ হাজার ৪০০ টাকা।

জানতে চাইলে বিসিএস পুলিশের ১৮ ব্যাচের কর্মকর্তাদের মধ্যে বর্তমানে র‌্যাব-৪ এর অধিনায়ক মোজাম্মেল হক  বলেন, বেশ কিছুদিন ধরেই এমন আলোচনা চলছে। তবে খুব শিগগির প্রজ্ঞাপন হবে বলে জেনেছেন তিনি।

Next Post

এক হাজার টাকার লাল নোট বাতিলের ‘নোটিশ’টি ভুয়া

বুধ মে ১১ , ২০২২
শেয়ার করতে নিচের বাটনে ক্লিক করুনআভা ডেস্কঃ এক হাজার টাকার লাল নোট বাতিল হচ্ছে বলে বিভিন্ন গণমাধ্যম ও সামাজিক মাধ্যমে যে কথা ছড়িয়েছে, তাকে গুজব বলে উড়িয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। বুধবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম একটি ‘বিশেষ নোটিশ’ অনেকে শেয়ার করে। এরপর ‘এক হাজার টাকার লাল নোট বাতিল করার ঘোষণা দিয়েছে কেন্দ্রীয় […]

Chief Editor

Johny Watshon

Lorem ipsum dolor sit amet, consectetur adipiscing elit, sed do eiusmod tempor incididunt ut labore et dolore magna aliqua. Ut enim ad minim veniam, quis nostrud exercitation ullamco laboris nisi ut aliquip ex ea commodo consequat. Duis aute irure dolor in reprehenderit in voluptate velit esse cillum dolore eu fugiat nulla pariatur

Quick Links